ইসলামী তাহজিব-তামাদ্দুনের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে: মুফতী ফয়জুল করীম

রাজনীতি

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই বলেছেন, বিরানব্বই মুসলমানের এই বাংলাদেশে ইসলামী তাহজিব-তামাদ্দুনের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। ইসলাম ও ইসলামী মূল্যবোধ বিনষ্ট করতে একটি মহল সিন্ডিকেটভিত্তিক অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। ইসলামী পুস্তক ও কুরআনকে জঙ্গি বই হিসেবে উপস্থাপন করতেও দ্বিধা করে না। ওই মহলটি নারায়ণগঞ্জে মসজিদে গ্যাস বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনা ভিন্নখাতে নিতে মসজিদ নিয়ে প্রশ্ন তুলছে যে, মসজিদটি বৈধ না অবৈধ। এমন প্রশ্নে আমরা ব্যথিত ও মর্মাহত। তিনি বলেন, মানুষ নিজের উপর ধারণা করে কথা বলে থাকেন। এজন্য মসজিদ বৈধ না অবৈধ তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। তারা জানে না যে, মসজিদ অবৈধ হওয়ার কোন সুযোগ নেই।

মুফতী ফয়জুল করীম বলেন, অপরদিকে ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল নামের ঔষধ কোম্পানীর মালিক কোম্পানীতে চাকুরীরত দাড়িওয়ালা মুসলমানদের ছাটাই করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। যা আমাদেরকে বিস্মিত করেছে। কোম্পানীর মালিক জানে না এদেশ মুসলমানদের দেশ। ইসলামী তাহজিব-তামাদ্দুন, টুপি-দাড়ি, পাঞ্জাবী নিয়ে মশকরা সহ্য করা হবে না। ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানীকে এত বড় সাহস কে দিয়েছে? তিনি বলেন, অবাক কান্ড, এধরণের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করলে কারো জন্যই সুখকর হবে না।

আজ বুধবার এক বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, চার্লি হেবদো পত্রিকা রাসূল সা. ব্যঙ্গচিত্র পূনঃ প্রকাশ করে সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে চায়। এধরণের ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশ মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে চরম আঘাত। চার্লি হেবদো পত্রিকা রাসূল সা. এর ফ্রান্সের কুখ্যাত কার্টুনিষ্ট লরেন লিস কর্তৃক অঙ্কিত রাসূল সা. এর ব্যঙ্গচিত্র ঐ দেশের চার্লি হেবদো পত্রিকায় পূনঃ প্রকাশের তীব্র প্রতিবাদ জানান তিনি। এধরণের অপকর্ম বন্ধ না হলে বিশ্বের মুসলমানরা ঈমানের তাগিদেই প্রতিবাদ মুখর হতে বাধ্য হবে।

জেআর;