এক দেশের বাসিন্দার অন্য দেশে কুরবানি

ইসলাম ফিকাহ

মুহাম্মদ মাহবুবুল হক

আমাদের দেশের অধিকাংশ প্রবাসীরা দেশে টাকা পাঠিয়ে নিজের উপর ওয়াজিব কুরবানি আদায় করিয়ে থাকেন।দেশের আত্মীয়-স্বজন প্রবাসীর পক্ষ থেকে পশু ক্রয় করে কুরবানি দেন।এতে কোন সমস্যা নেই।কুরবানি শুদ্ধ হবে।তবে একটি বিষয় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে, উভয় দেশের কুরবানির দিনগুলোতে কুরবানি করা হচ্ছে কিনা।মনে করুন,আমেরিকা থেকে একজন লোক তার ওয়াজিব কুরবানি বাংলাদেশে আদায় করাচ্ছে, এখন আমেরিকা ও বাংলাদেশ উভয় স্থানে কুরবানির দিন হতে হবে।কুরবানি তিন দিন করা যায়।১০,১১,১২ জিলহজ্ব।যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, সউদি আরবসহ অনেক দেশে বাংলাদেশের একদিন পূর্বে ঈদ হয়।তাহলে উক্ত দেশগুলোর অধিবাসীগণ বাংলাদেশে কুরবানী করালে কুরবানির ২য় দিন হবে।সুতরাং তার কুরবানি শুদ্ধ হতে কোন প্রতিবন্ধকতা নেই।পক্ষান্তরে বাংলাদেশের বাসিন্দা যদি যুক্তরাষ্ট্রে কুরবানি করান,আর সে দেশে কুরবানীর প্রথম দিনই কুরবানির পশু জবাই দিয়ে কুরবানি কার্যকর করা হয়,তাহলে এই কুরবানি শুদ্ধ হবে না।কারণ বাংলাদেশে কুরবানির দিন আসে নি।মূল কথা হলো,কুরবানিদাতার অবস্থান আর কুরবানির পশু জবাইয়ের স্থানে কুরবানির দিন হতে হবে।
সূত্র:বাদায়েউস সানায়ে ৫/৭৪,কুরবানি কে মাসাইল কা ইনসাইক্লোপিডিয়া৮৪

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *