দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি রোধে সরকারকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে -ছাত্র মজলিস কেন্দ্রীয় সভাপতি

সংগঠন

ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি পরিষদের বার্ষিক অধিবেশন অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মদ তারিক বিন হাবীব বলেছেন, দেশের ব্যবসা বাণিজ্য দুষ্টচক্র নিয়ন্ত্রণ করছে। দ্রব্যমুল্যের লাগামহীন উর্ধগতিতে দেশের গরীব খেটে খাওয়া মানুষের নাভিঃশ্বাস উঠেছে। বাজারে লাগামহীন অরাজকতায় সাধারন মানুষ অতিষ্ট। এমতাবস্থায় দ্রব্যমুল্যের উর্ধগতি রোধ করে বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকারকে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, করোনা মহামারীর কারণে দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পর অবশেষে খুলে দেওয়া হয়েছে। এই ক্ষতি পোষাতে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার সুষ্টু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে। শিক্ষা উপকরণের মুল্য হৃাস এবং শিক্ষা ব্যয় কমিয়ে সর্বস্তরের শিক্ষার্থীদেরকে পড়ালেখার সুযোগ করে দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান তিনি।

আজ বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের ২০২০-২১ সেশনের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি পরষিদের বার্ষিক অধিবেশনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, দেশের শিক্ষাঙ্গন, প্রশাসন ও চিকিৎসালয়সহ প্রতিটি সেক্টরকে দুর্নীতিমুক্ত এবং সামাজিক অবক্ষয় থেকে জাতিকে মুক্তি দিতে সার্বজনীন ইসলামী শিক্ষা চালুর কোন বিকল্প নেই।
সর্বোপরী বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কাজকে বেগবান করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

সংগঠনের সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ খালেদ সাইফুল্লাহ এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা এনামুল হক মুসা, মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, মাওলানা হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া, মুফতি আব্দুর রহীম সাঈদ, কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন সাকি, কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মুহাম্মদ রশীদ মুশতাক, শিক্ষা ও ক্যাম্পাস বিষয়ক সম্পাদক মাহদী হাসান জামাল, প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য ইকরামুল হক জুনাইদ, দেলোয়ার আল হুসাইন প্রমুখ।

অধিবেশনে গৃহিত প্রস্তাবনাসমূহঃ
১. স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার সুষ্টু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে।
২. বিদ্যুৎ, গ্যাস ও দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণে সরকারকে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।
৩. সকলপ্রকার দুর্নীতি ও সামাজিক অবক্ষয় রোধে সার্বজনীন ইসলামী শিক্ষা চালু করতে হবে।
৪. শিক্ষা উপকরণের মুল্য হৃাস করতে হবে।
৫. ক্যাম্পাসে হয়রানী অরাজকতা ও দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *