‘মরদেহ গোসল’ জামেয়া মাদানিয়ার অন্যতম মানবিক সেবা

সারাদেশ

ভয়েস টাইমস: প্রিন্সিপাল আল্লামা হাবীবুর রহমান রহ.ইলমে নববী শিক্ষাদানের জন্য গড়ে তুলেছেন সু-বিশাল জামেয়া। সেই সাথে মানবসেবার জন্য প্রতিষ্ঠা করেছেন সেবামূলক সংস্থা “আল-মারকাজুল খাইরি আল-ইসলামী”।

জামেয়া মাদানিয়ার তত্ত্বাবধানে মারকাজের বহুমুখী কর্মতৎপরতার মধ্যে অন্যতম সেবা হলো, মৃত ব্যক্তিদেরকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে গোসল দেওয়ার জন্য ” লাশ গোসলখানা”।

জামেয়ার ক্যাম্পাসের ভেতর শিক্ষা ভবনের ১ম তলায় সুসজ্জিত একটি কামরায় মরদেহ গোসলের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রসহ সুন্দর ব্যবস্থাপনা রয়েছে।

সিলেট শহরসহ বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সারা বছর এখানে শত শত লাশ নিয়ে আসা হয়। জামেয়ার স্বেচ্ছাসেবী ছাত্ররা মরদেহ গোসল দিয়ে দেয়।মরদেহ গোসলে কোন বিনিময় গ্রহণ করা হয় না।সব সময়ের জন্য জামেয়ার এ সেবাটি সবার জন্য উন্মুক্ত।

বিশেষ করে করোনার এই সময়ে সন্তান যখন নিজের বাবার লাশ ফেলে পালিয়ে যাচ্ছে। আত্মীয়রা নিজের স্বজনের লাশ রাস্তায় রেখে চলে যাচ্ছে। ঠিক এই দু:সময়েও করোনার কারণে প্রায় তিনমাস যাবত মাদ্রাসা বন্ধ থাকার পরও
জামেয়ায় মরদেহ গোসলের ব্যবস্থাপনা চালু আছে। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে মানুষ লাশ নিয়ে মাদ্রাসায় এসে গোসল এবং কাফনের কাজ সেরে নিচ্ছে।মৃত ব্যক্তির মরদেহ গোসল দেওয়ার জন্য স্বজন বা অন্য কেউ না থাকলে কর্তৃপক্ষ মনোনীত স্বেচ্ছাসেবকরা কারোনার এই সময়েও লাশ গোসলের কাজ করে যাচ্ছেন।

করোনায় মৃত ব্যক্তির লাশ গোসলের জন্য বিভিন্ন সংস্থা ও সংগঠন মরদেহ গোসলের জন্য মারকাজের এই সেবা গ্রহণ করছেন।গতকাল( ৮ জুন) সোমবার দিবাগত রাতে সিলেট শহরের জামেয়া শায়খুল ইসলাম ইন্টারন্যাশনালের পরিচালক মাওলানা সৈয়দ সালিম কাসেমী ও ইমাম আবু হানিফ রহ. ফতোয়া ও গবেষণা ইনস্টিটিউট এর পরিচালক মুফতী মোস্তফা সোহাইল হেলালী শহীদ সামছুদ্দীন হাসপাতালে করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তির মরদেহ গোসল দিয়েছেন জামেয়া মাদানিয়ার ‘লাশ গোসলখানায়’।

মাওলানা সৈয়দ সালিম কাসেমী সমাজ সেবায় সিলেটের কাজিরবাজার মাদরাসাকে
হাজারো মোবারকবাদ জানিয়ে তাঁর ফেসবুক টাইমলাইনে লিখেছেন, গতকাল এক মৃতের গোসল করানোর জন্য সহপাঠি মাওলানা মুফতী মোস্তফা সোহেল ও মাওলানা শামিম কে নিয়ে কাজিরবাজির মাদরাসায় গেলাম৷ মাদরাসা বন্ধ৷ কিন্তু যেকোন লাশের গোসলের ব্যবস্থাপনা খোলা রাখা হয়েছে৷ করোনা আশংকায় যখন মানুষ নিজ এলাকায় ঢুকতে দিচ্ছে না, সেখানে কাজির বাজার মাদরাসায় দৈনন্দিন করোনা মৃত ও করোনা রোগী সংশ্লিষ্ট লোকের অহরহ যাতায়াত চলছে৷ গরম পানি, তোয়ালে, টিস্যু, সাবান সহ সবকিছুর সুন্দর ব্যবস্থা দেখে মুগ্ধ হয়েছি৷ মাদরাসার খাদিম প্রচুর সহযোগিতা করেছে৷ তার অভিজ্ঞতা দেখে মনে হয়েছে সে সব সময় লাশ গোসলে সহযোগিতা করে৷

একইভাবে গতকাল করোনায় মৃতের লাশ গোসলে অংশ নেয়া মুফতী মোস্তফা সোহাইল হেলালীও সংকটকালে জামেয়ার এই সেবার প্রশংসা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অনুভূতি ব্যক্ত করেছেন।সব সময়ই মারকাজের এই সেবার সুফল ভোগ করছেন সিলেট নগরীর বাসিন্দারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *