মানবতার ফেরিওয়ালা আলহাজ্ব মাওলানা শায়খ ফয়েজ আহমদ

ফিচার

নিজস্ব প্রতিবেদক:আলহাজ্ব মাওলানা শায়খ ফয়েজ আহমদ।একজন মানবতার ফেরিওয়ালা। মানবতার কল্যাণে কাজ করা তাঁর জীবনের লক্ষ্য। তিনি আন্তর্জাতিক সেবা সংস্থা মাদীনাতুল খাইরী আল ইসলামীর চেয়ারম্যান।একই সাথে তিনি বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

চলমান এই দুর্যোগে মদীনাতুল খাইরী আল ইসলামী ও মানবিক আলেম মাওলানা ফয়েজ আহমদের নানা কর্মযজ্ঞের কিছুটা এই প্রতিবেদনে তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে।

বিশ্বব্যাপী চলছে এখন এক ভয়াল বিপর্যয়।মরণঘাতী করোনা ভাইরাস বিগত চার মাস থেকে তান্ডব চালাচ্ছে বিশ্বজুড়ে।কেড়ে নিচ্ছে লাখো লাখো প্রাণ।ফলে বিশ্বব্যাপী নেমে এসেছে মানবিক বিপর্যয়।বৈশ্বিক এই দুর্যোগ ভেঙে দিয়েছে অর্থনৈতিক কাঠামো।জীবন যুদ্ধে হেরে যাচ্ছে নিম্ন আয়ের মানুষ।অর্থনৈতিক সংকটে দিশেহারা মানুষ।এদিকে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বন্যার হানা।বানের পানিতে তলিয়ে গেছে দেশের ৩৬ টি জেলা।লাখো লাখো মানুষ পানিবন্দী।বন্যাকবলিত এলাকায় খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে। সব মিলিয়ে বৈশ্বিক ও দৈশিক সংকটের যাতাকলে মানুষ পিষ্ট।

এদিকে সামনে ঈদুল আজহা।যেখানে অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর চুলোয় জ্বলছে না আগুন,সেখানে কুরবানীর গোশত কী জুটবে তাদের কপালে! বন্যা ও করোনায় কুরবানির ঈদের আনন্দ ফিকে হয়ে যাচ্ছে।

এই সময়ে দুমুঠো ডাল-ভাতের জোগান দিতে হিমশিম খাচ্ছে অনেক পরিবার। মানবতার ভয়াল এই বিপর্যয়ে অভাবী ও নিম্নবিত্তসহ সংকটে পড়া মানবতার পাশে দাঁড়িয়েছেন মানব দরদী আলহাজ্ব মাওলানা শায়খ ফয়েজ আহমদ।

মানবসেবায় আলহাজ্ব শয়খ ফয়েজ আহমদ দেশে-বিদেশে পরিচিত এক নাম।যে কোন দুর্যোগ ও বিপর্যয়ে তিনি মানবতার ফেরিওয়ালার ভূমিকায় সবার আগে এগিয়ে আসেন।

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার হবিবপুরের কৃতিসন্তান এবারও বন্যা পরিস্থিতি ও করোনা দুর্যোগে মানবতার কল্যাণে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন।

ইতিমধ্যে জুলাইয়ের ১ম সাপ্তাহে মাওলানা ফয়েজ আহমদের অর্থায়নে বন্যাদুর্গত সুনামগঞ্জের দুই শতাধিক পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

মাদীনাতুল খাইরী আল ইসলামীর চেয়ারম্যান,লন্ডন ইকরা টিভির জনপ্রিয় ভাষ্যকার, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক সম্পাদক ও যুক্তরাজ্য শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি শায়খ মাওলানা ফয়েজ আহমদ তাঁর সেবা সংস্থা মাদীনাতুল খাইরী আল ইসলামীর মাধ্যমে অসহায় ও অভাবী মানুষকে অর্থ সহায়তা , খাদ্য সামগ্রী, ঘর নির্মাণ, টিউবওয়েল স্থাপন, সিলাই মেশিন বিতরণ, কর্মহীন অভাবীদের মধ্যে অটো রিকশা বিতরণ,
কোরআন বিতরণ ও চিকিৎসা সেবা প্রদান করে আসছে।

আন্তর্জাতিক সেবা সংস্থা মাদীনাতুল খাইরী আল ইসলামীর চেয়ারম্যান শায়খ ফয়েজ আহমদ জানান, গত রমজান ও ঈদুল ফিতরে বাংলাদেশে তিন হাজার কপি কোরআন শরীফ বিতরণ, একটি মসজিদ নির্মাণ, চারটি ঘর নির্মাণ, বিশটি টিউবওয়েল স্থাপন , দশটি সেলাই মেশিন বিতরণ,খাদ্য ও ঈদসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

আসন্ন ঈদুল আজহায় বন্যা ও করোনা পরিস্থিতিতে দরিদ্র মানুষের জন্য কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে মাওলানা শায়খ ফয়েজ আহমদ বলেন,আমরা প্রতিবছর দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কুরবানি করে থাকি।এই ঈদেও বৃহত্তর সিলেটসহ দেশের নানা প্রান্তে কুরবানি করা হবে।বন্যার্ত ও করোনায় বিপর্যস্ত অভাবী মানুষের মধ্যে কুরবানির গোশত বিতরণ করা হবে।

মাওলানা শায়খ ফয়েজ আহমদ বলেন,বৈশ্বিক এই করোনা দুর্যোগে ও বন্যায় বিপর্যস্ত জনগণের কল্যাণে নিজের সর্বস্ব বিলিয়ে দিয়ে পাশে থাকবো। মানবতার কল্যাণে কাজ করতে পেরে আমি আনন্দিত।অভাবী ও দু:খীজনের মুখে হাসি ফুটাতে পারলে মনে শান্তি লাগে।মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করি,তিনি আমাকে মানবসেবায় কাজ করার তৌফিক দিয়েছেন।আমি আজীবন মানবতার তরে ও পরোপকারে কাজ করে যেতে চাই। মহান আল্লাহ যাবতীয় কার্যক্রমকে কবুল করুন এবং আরো বেশি করে দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করার তাওফিক দান করুন।আমীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *