স্কুল-কলেজসহ দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দ্রুত খোলে দিতে হবে -ছাত্র মজলিস কেন্দ্রীয় সভাপতি

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের ২০২০-২১ সেশনের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি পরিষদের প্রথম অধিবেশন গত ১৯ অক্টোবর, সোমবার পুরানা পল্টনস্থ দারুল খিলাফাহ মিলনায়তনে নবনির্বাচিত কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মাদ তারিক বিন হাবীবের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মাদ উবায়দুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মদ তারিক বিন হাবীব বলেছেন, মেধার সংরক্ষণ ও বিকাশের স্বার্থে দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলে দিতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খুলে না দিলে শিক্ষার্থীদের মেধা হুমকির মুখে পরতে পারে। সামাজিক শৃঙ্খলা, জ্ঞানের নিরাপত্তা আর শিক্ষার্থীদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ বিনির্মাণের লক্ষে অতিদ্রুত দেশের সকল স্কুল, কলেজ, মাদরাসা, বিশ্ববিদ্যালয় এবং অন্যান্য প্রশিক্ষণভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেয়া সময়ের অপরিহার্য দাবী।

তিনি বলেন, শিক্ষাপোকরণের পাশাপাশি নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রুব্যাদির দাম আকাশছোঁয়া হয়ে পরেছে। মানুষের জীবনমানের দিকে লক্ষরেখে দ্রব্যমূল্য জনগণের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে নিয়ে আসতে হবে। তিনি আরো বলেন, দেশব্যাপী যে পরিমাণ সামাজিক অপরাধ, খুন, ধর্ষণ, গুম, নির্যাতন হচ্ছে, এরজন্য সরকারই দায়ী। প্রতিটি অপরাধের সঠিক বিচার হলে একেরপর এক নতুন অপরাধ সংগঠিত হত না।

অধিবেশনে ২০২০-২১ সেশনের জন্য মুহাম্মদ সালাহ উদ্দীন সাকীকে প্রশিক্ষণ সম্পাদক, মুহাম্মদ খালেদ সাইফুল্লাহকে বায়তুলমাল সম্পাদক, মুহাম্মদ রশীদ মুশতাককে প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, লোকমান হোসাইনকে অফিস সম্পাদক, মুহাম্মদ শরীফুল ইসলামকে ছাত্রকল্যাণ সম্পাদক এবং মাহদী হাসান জামালকে শিক্ষা ও ক্যাম্পাস বিষয়ক সম্পাদক করে কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ গঠন করা হয়। উক্ত অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা এনামুল হক মুসা, মুফতি নুর মুহাম্মদ আজিজী, মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, মাওলানা হারুনুর রশীদ ভূইয়া, মুফতি আব্দুর রহীম সাঈদ, প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য দেলওয়ার আল হুসাইন প্রমূখ।